মহিলাদের নামাযের বিষয়ে সাহাবায়ে কেরামের ফতোয়া

১. হযরত আলী রা. বলেছেন,
إذا سجدت المرأة فلتحتفز ولتصق فخذيها ببطنها. رواه عبد الرزاق في المصنف واللفظ له، وابن أبي شيبة في المصنف أيضا وإسناده جيد، والصواب في الحارث هو التوثيق.
” মহিলা যখন  সেজদা করবে তখন সে যেন খুব জড়সড় হয়ে  সেজদা করে এবং উভয় উরু পেটের সাথে মিলিয়ে রাখে।”
(মুসান্নাফে আব্দুর রাযযাক ৩/১৩৮, অনুচ্ছেদ: মহিলার তাকবীর, কিয়াম, রুকু ও  সেজদা; মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা ২/৩০৮; সুনানে কুবরা, বায়হাকী ২/২২২)
২. হযরত ইবনে আব্বাস রা. এর ফতোয়া:
عن ابن عباس أنه سئل عن صلاة المرأة، فقال : “تجتمع وتحتفز”(رواه ابن أبي شيبة ورجاله ثقات)
আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. কে জিজ্ঞেস করা হয়েছে, মহিলা কীভাবে নামায আদায় করবে? তিনি বললেন, খুব জড়সড় হয়ে অঙ্গের সাথে অঙ্গ মিলিয়ে নামায় আদায় করবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা ১/৩০২)
হযরত আতা ইবনে আবী রাবাহ র. কে জিজ্ঞেস করা হল,
كيف ترفع يديها في الصلاة قال حذو ثدييها .
নামাযে মহিলা কতটুকু হাত উঠাবে? তিনি বললেন, বুক বরাবর। (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা   ১/২৭০)
২. ইবনে জুরাইজ র. বলেন,
قلت لعطاء تشير المرأة بيديها بالتكبير كالرجل قال لا ترفع بذلك يديها كالرجل وأشار فخفض يديه جدا وجمعهما إليه جدا وقال إن للمرأة هيئة ليست للرجل وإن تركت ذلك فلا حرج
আমি আতা ইবনে আবী রাবাহকে জিজ্ঞেস করলাম, মহিলা তাকবীরের সময় পুরুষের সমান হাত তুলবে? তিনি বললেন, মহিলা পুরুষের মত হাত উঠাবেনা। এরপর তিনি (মহিলাদের হাত তোলার ভঙ্গি দেখালেন এবং) তার উভয় হাত (পুরুষ অপেক্ষা) অনেক নিচুতে রেখে শরীরের সাথে খুব মিলিয়ে রাখলেন এবং বললেন, মহিলাদের পদ্ধতি পুরুষ থেকে ভিন্ন। তবে এমন না করলেও অসুবিধা নেই।(মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা ১/২৭০)
৩. মুজাহিদ ইবনে জাবর র. থেকে বর্ণিত:
عن مجاهد بن جبر أنه كان يكره أن يضع الرجل بطنه على فخذيه إذا سجد كما تضع المرأة .
তিনি পুরুষের জন্যে মহিলার মত  উরুর সাথে পেট লাগিয়ে  সেজদা করাকে অপছন্দ করতেন।   (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা   ১/৩০২)
৪. যুহরী র. বলেন,
ترفع يديها حذو منكبيها .
মহিলা কাঁধ পর্যন্ত হাত উঠাবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা   ১/২৭০)
৫. হাসান বসরী ও কাতাদা র. বলেন,
إذا سجدت المرأة فإنها تنضم ما استطاعت ولا تتجافي لكي لا ترفع عجيزتها
মহিলা যখন  সেজদা করবে তখন সে যথাসম্ভব জড়সড় হয়ে থাকবে। অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ফাঁকা রেখে  সেজদা দিবেনা; যাতে কোমর উচু হয়ে না থাকে।
(মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা  ১/৩০৩, মুসান্নাফে আব্দুর রাযযাক  ৩/১৩৭)
৬. ইবরাহীম নাখায়ী র. বলেন,
إذا سجدت المرأة فلتضم فخذيها ولتضع بطنها عليهما
মহিলা যখন  সেজদা করবে তখন যেন সে উভয় উরু মিলিয়ে রাখে এবং পেট উরুর সাথে মিলিয়ে রাখে। (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা   ১/৩০২)
৭. ইবরাহীম নাখায়ী র. আরো বলেন,
كانت تؤمر المرأة  أن تضع ذراعها وبطنها على فخذيها إذا سجدت ، ولا تتجافى كما يتجافى الرجل ، لكي لا ترفع عجيزتها

মহিলাদের আদেশ করা হত তারা যেন সেজদা অবস্থায় হাত ও পেট উরুর সাথে মিলিয়ে রাখে। পুরুষের মত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ফাঁকা না রাখে; যাতে কোমর উঁচু হয়ে না থাকে। (মুসান্নাফে আব্দুর রাযযাক  ৩/১৩৭)
৮. খালেদ ইবনে লাজলাজ র. বলেন,
كن النساء يؤمرن أن يتربعن إذا جلسن في الصلاة ولا يجلسن جلوس الرجال على أوراكهن يتقي ذلك على المرأة مخافة أن يكون منها الشئ .
মহিলাদেরকে আদেশ করা হত তারা যেন  নামাযে দুই পা ডান দিক দিয়ে বের করে নিতম্বের উপর বসে। পুরুষদের মত না বসে। আবরণযোগ্য কোন কিছু প্রকাশিত হয়ে যাওয়ার আশংকায় মহিলাদেরকে এমনটি করতে হয়। (মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা   ১/৩০৩)

এ বিষয়ে অন্যান্য লিখাসমূহ:
মহিলাদের নামায আদায়ের পদ্ধতি

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE